কারও বিছানায় যাইনি বলেই প্রাপ্য টুকুনও পাইনি : শ্রীলেখা

নিউজ ডেস্ক: বলিউড তারকা সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যার পর কলকাতার এক ঝাঁক তারকার নামে স্বজনপ্রীতির চর্চার অভিযোগ তুলেছেন ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। সম্প্রতি নিজের ইউটিউব চ্যানেলে এক ভিডিওবার্তায় নিজের ক্ষোভ উগড়ে দেন তিনি। শ্রীলেখার অভিযোগে উঠে এসেছে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তসহ একাধিক মানুষের নাম।

শ্রীলেখা জানান, যে পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়ে সুশান্ত আত্মহত্যা করলেন, এমন পরিস্থিতে তিনি নিজেও পড়েছেন! শুধু বলিউডে নয়, টালিউডেও স্বজনপ্রীতির চর্চা হয়ে আসছে বহুকাল ধরে।

ভিডিওর শুরুতে তিনি বলেন, ‘জীবনে কোনোদিন কোনো রাজনৈতিক দল করিনি। কোন দাদাকে মঞ্চে উঠে রাখিও পরাইনি। প্রযোজক-পরিচালকের সঙ্গে বেডও শেয়ার করিনি। আমি ভয় পাব কাকে? কী হারানোর আছে আমার?’

সুশান্তের অবসাদ, কাজ হারানোর যন্ত্রণা, বহিরাগত হয়েও নিজেকে প্রমাণের আপ্রাণ চেষ্টা এবং নিজের ক্যারিয়ারের প্রথম দিকের কিছু ঘটনাকে একই পঙ্‌ক্তিতে বসিয়ে শ্রীলেখা বলেন, ‘ইন্ডাস্ট্রিতে আমার কোনো গডফাদার ছিল না। কিছুর বিনিময়ে ছবি পাইয়ে দেওয়ারও কেউ ছিল না। সিরিয়াল থেকে ওড়িয়া ছবি। সেখান থেকে বাংলা ছবি… নায়িকার চরিত্র পেতাম না প্রথম দিকে। তখন ইন্ডাস্ট্রি মানেই প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। আমি তার বোনের চরিত্রে অভিনয় করছি। আমি জানি, আমার নায়িকা হওয়ার যোগ্যতা রয়েছে। কিন্তু ওই যে আমার কোনো গডফাদার নেই। আমার কোনো অভিনেতার সঙ্গে প্রেমও নেই। তখন ঋতুপর্ণার সঙ্গে প্রসেনজিৎ-এর প্রেম।’

ভিডিওতে তিনি আরও বলেন, ‘তখন বুম্বাদাই (প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়) চালাত টালিউডকে। পরিচালকরা ওর পায়ের কাছে বসে থাকত। ঋতু দেরি করে শুটিং ফ্লোরে আসত। সবাই ওর জন্য অপেক্ষা করত। কিন্তু তা সত্ত্বেও ওকে একর পর এক ছবিতে নেওয়া হতো। অন্য দিকে আমাদের প্রমাণ করতে হতো আমরা টাইমে আসি।’

এখানেই শেষ নয়, সৃজিত মুখোপাধ্যায়, কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়, শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের ছবিতেও কাজ না পাওয়া নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন শ্রীলেখা। ভিডিওতে টলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির আরও অনেক বিষয় নিয়েও কথা বলেছেন এই অভিনেত্রী।

নামীদামিদের বিরুদ্ধে মুখ খুলে তিনি যে ভুল কিছু করেননি, সে কথাও জোর দিয়ে বলছেন শ্রীলেখা। তার ভাষ্য, ‘আমি জানি এবার থেকে আমি আরও কোণঠাসা হয়ে যাব। জানি না, আর কাজ পাব কি না! বা পেলেও কতটা পাব। তবে হ্যাঁ, একটা কথা আমি বলতে চাই আমি শ্রীলেখা মিত্র নিজের ইউটিউব চ্যানেল থেকে এই ভিডিও আপলোড করেছি। কারও কাছে কাঁদুনি গাইনি। যা করেছি বেশ করেছি। যা বলেছি, ভালো করেছি। সত্যিটা প্রকাশ পাওয়ার দরকার ছিল। এই গ্ল্যামার জগতে আউটসাইডার হয়ে একই সঙ্গে কম্প্রোমাইজ না করে কাজ করা যে কতটা কঠিন তা সবাই জানুক, দেখুক লোকে।’

তার কথায়, সুশান্তের মতো এমন মৃত্যুর ঘটনা আর যেন না হয়। সে কারণেই তার এই কথাগুলো বলা।

ad
ad

বিনোদন সর্বশেষ

ad
ad

বিনোদন সর্বাধিক পঠিত

আগের সংবাদ
পরের সংবাদ