সুশান্তের জীবনের শেষ কয়েক ঘণ্টা

বলিউড তারকা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুকে ঘিরে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে বিভিন্ন প্রতিবেদন বেরিয়েছে। মুম্বাই মিরর পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে তার জীবনের শেষ কয়েক ঘণ্টার বিবরণ। প্রতিবেদন বলা হয়েছে, মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় কার্টার রোডের একটি ভবনের ষষ্ঠ তলার ফ্ল্যাটে রবিবার (১৪ জুন) ভোর সাড়ে ৬টায় দিন শুরু করেন সুশান্ত। এর পর প্রাত্যহিক কাজকর্ম সেরে সময় কাটছিল। সকাল ৯টায় ফোন করেন বোনকে।

হৃদয়বিদারক ঘটনাটির টাইমলাইন-

সকাল ৯টা ৩০ মিনিট : জুসের গ্লাস নিয়ে ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেন সুশান্ত।

সকাল ১০টা ৩০ মিনিট : দুপুরে দরজায় নক করেন গৃহকর্মী। কিন্তু কোনো সাড়া মেলেনি।

দুপুর ১২টা : গৃহকর্মী খাবারের জন্য আবারও দরজায় নক করেন। জবাব আসেনি এবারও। দুপুর ১২টা ১৫ মিনিট : সুশান্তের বোনকে বিষয়টি জানানো হয়।

দুপুর ১২টা ৫০ মিনিট : বোন এসে দরজা খোলার চেষ্টা করেন।

দুপুর ১টা ১৫ মিনিট : তালা খুলতে মিস্ত্রি ডেকে আনা হয়। চাবি বানিয়ে দরজা খুলতেই সুশান্তের দেহ ঝুলে থাকতে দেখা যায় কক্ষের ভেতর।

নিয়ম অনুযায়ী সুশান্তের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয় মুম্বাইয়ের ড. আরএন কুপার মিউনিসিপ্যাল হাসপাতালে। গত সোমবার সেখানকার প্রতিবেদন প্রকাশ করে ইন্ডিয়ান টাইমস, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসসহ বেশ কিছু ভারতীয় গণমাধ্যম। হাসপাতালের রিপোর্ট বলছে, ঝুলে থাকায় অ্যাসফিক্সিয়ার কারণেই মৃত্যু হয়েছে অভিনেতার। এ প্রতিবেদনের সূত্রে মুম্বাই পুলিশ প্রাথমিক তদন্তে বলেছে, এটি আত্মহত্যার ঘটনা। তবে সুশান্তের পরিবার এটি মানতে নারাজ। পরিবারের পক্ষে তার মামা স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে এ নিয়ে মন্তব্য করেছেন। তিনি সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। তার দাবি, ‘এটি হত্যা।’

দেবরের শোকে ভাবির মৃত্যু

শোক আর আর্তনাদ পিছু ছাড়ছে না সুশান্ত সিং রাজপুতের পরিবারের চারপাশ। অভিনেতার মৃত্যুর পরদিনই মারা গেলেন তার ভাবি সুধা দেবী। দেববের মৃত্যুর শোকেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য ইকোনমিকস টাইমস। আর এটি প্রকাশ্যে আসার পর আরেক দফা শোকের ছায়া নেমে এসেছে বলিমহলেও। জানা গেছে, সুশান্তের মৃত্যুর খবর জানার পর থেকেই খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে দেন তার ভাবি সুধা দেবী। শোক আর সহ্য করতে না পেরে গত সোমবার তিনি না ফেরার দেশে চলে যান। সুশান্তের ভাই অম্বরেন্দ্র রাজপুতের স্ত্রী বেশ কয়েক দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। সুধা দেবীর স্বামী সংবাদমাধ্যমে জানান, সোমবার সকাল থেকে সুধার শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছিল। বিকাল ৫টায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

ad
ad

বিনোদন সর্বশেষ

ad
ad

বিনোদন সর্বাধিক পঠিত

আগের সংবাদ
পরের সংবাদ