চাঁদাবাজির অভিযোগে আওয়ামী লীগ নেতাকে নগ্ন করে মারধর

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে চাঁদাবাজির অভিযোগে মনির হোসেন নামে আওয়ামী লীগের ইউনিট পর্যায়ের এক নেতাকে নগ্ন করে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। তবে এই আওয়ামী লীগ নেতার দাবি, চাঁদাবাজির প্রতিবাদ করায় শুক্রবার (১৫ মে) সন্ধ্যায় এক দল যুবক এ ঘটনায় ঘটায়। তিনি এ ব্যাপারে মোহাম্মদপুর থানায় অভিযোগ করেছেন।

পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (পুলিশ সুপার হিসেবে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) ওয়াহিদুল ইসলাম বলেন, ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। অভিযোগের সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা যায়, মনির হোসেন মোহাম্মদপুর থানা আওয়ামী লীগের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের ১২ নম্বর ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক। শুক্রবার ইফতারের পর পরিচিত কয়েকজন তাকে একটি বিষয়ে আলোচনার কথা বলে জাকির হোসেন রোডের বাসা থেকে তাজমহল রোডের কবরস্থান মাঠে নিয়ে যায়। সেখানে কয়েকজন তাকে ঘিরে ধরে এবং মারধর করে। এ সময় তারা মাদক সেবন করে। পরে তাকে ‘বাড়াবাড়ি’ না করার হুমকি দিয়ে পরনের কাপড় খুলে নেয়। শুধু আন্ডারওয়্যার পরা অবস্থায় মোবাইল ফোনে তার ছবি তুলে ও ভিডিও করে রাখা হয়। আরেক দফা মারধর শেষে ওই অবস্থাতেই তাকে রিকশায় তুলে টাউন হল বাজারে নিয়ে ছেড়ে দেয় দুর্বৃত্তরা।

সবজি ব্যবসায়ী মনির হোসেন সাংবাদিকদের জানান, সালাম, লাবু ও দীপুসহ পূর্ব পরিচিত কয়েকজন এ ঘটনায় ঘটিয়েছে। তারা স্থানীয় এক ওয়ার্ড কাউন্সিলরের মদদপুষ্ট ক্যাডার। তিনি চাঁদাবাজিতে বাধা দেওয়ায় তারা এই হামলা চালায়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে পুলিশের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জানান, মনির হোসেনের বিরুদ্ধে টাউন হল এলাকার ফুটপাতের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ আছে। চাঁদা আদায় নিয়ে দুই পক্ষের বিরোধে এমন ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।

ad
ad

আওয়ামী লীগ সর্বশেষ

ad
ad

আওয়ামী লীগ সর্বাধিক পঠিত

আগের সংবাদ
পরের সংবাদ