ঈদের আগে নিউ মার্কেট না খোলার সিদ্ধান্ত

নিউজ ডেস্ক: করোনায় সৃষ্ট সঙ্কটের মধ্যেই ১০ মে থেকে সরকার সীমিত পরিসরে দোকান ও শপিংমল খোলার ঘোষণা দিলেও সংক্রমণ রোধে ঈদের আগে রাজধানীর নিউ মার্কেট না খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দোকান মালিক সমিতি। শুক্রবার সন্ধ্যায় নিউ মার্কেট দোকান মালিক সমিতি এ সিদ্ধান্তের কথা জানায়।

এছাড়াও রাজধানীর মৌচাক মার্কেট এবং আনারকলি মার্কেটও না খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দোকান মালিক সমিতি।

এদিকে, ঈদের আগে খুলবে না সিলেটের কোনো শপিংমল ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। শুক্রবার দুপুরে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ব্যবসায়ী নেতাদের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৈঠকে স্বাস্থ্যঝুঁকি বিবেচনায় সর্বসম্মতিক্রমে এই সিদ্ধান্ত নেন ব্যবসায়ীরা।

তারা জানান, করোনা আক্রান্ত বেড়ে যাওয়ায় ১০ই মে থেকে সিলেটের কোনো শপিং মল ও মার্কেট না খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ঈদের আগে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান না খোলার ব্যাপারেও সবাই একমত হন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে এই সময়ে নিত্যপণ্যের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছাড়া অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ রাখার অনুরোধ জানানো হয়।

এর আগে, বৃহস্পতিবার শপিংমল না খোলার সিদ্ধান্তের কথা জানায় দেশের বৃহৎ দুই শপিংমল বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্স ও যমুনা ফিউচার পার্ক কর্তৃপক্ষ।

সীমিত পরিসরে মার্কেট ও শপিংমল খোলার ঘোষণার পর কেনাকাটার বিষয়ে নির্দেশনা জারি করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ-ডিএমপি। ডিএমপির নির্দেশনায় বলা হয়-কেনাকাটা করতে আগ্রহী ব্যক্তিরা নিজ নিজ এলাকার দুই কিলোমিটারের মধ্যে অবস্থিত মার্কেট ও শপিংমলে কেনাকাটা করবেন। এমনকি এক এলাকার ক্রেতা অন্য এলাকায় গিয়ে কেনাকাটা কারতে পারবে না। আর কেনাকাটা করতে বের হওয়ার সময় সঙ্গে পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট অথবা ড্রাইভিং লাইসেন্স সঙ্গে রাখার নির্দেশনা দেয়া হয় ডিএমপির পক্ষ থেকে।

ad
ad

অর্থনীতি সর্বশেষ

ad
ad

অর্থনীতি সর্বাধিক পঠিত

আগের সংবাদ
পরের সংবাদ