পাশে স্থায়ী বেঞ্চের ব্যবস্থা, দৃষ্টিনন্দন করে সাজানো

বাংলাদেশির কবর নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে কৌতূহল

চিরনিদ্রায় আছেন তিনি। পাশে বসার ব্যবস্থা। এই করোনাকালে মৃতের কবরের এমন ধরন!

করোনায় মৃতদের কবরের জায়গা পাওয়া যাচ্ছে না যুক্তরাষ্ট্রে, গণকবর দেওয়া হচ্ছে বাংলাদেশিদের- এমন নানা অপপ্রচারের সময় এ কবর সত্যি খানিকটা কৌতূহল বাড়ায়। নিউজার্সির মরগানভিলে মালবরো মুসলিম মেমোরিয়াল সিমেট্রিতে গেলে অনেকেরই নজর কাড়ছে এই কবর। একদম আলাদা করে সাজানো গোছানো। চারটি কবরের জায়গা নিয়ে সীমানা দেওয়া কবরটি। ১৯৪৭ সালের এপ্রিল মাসে জন্ম নেওয়া এক বাংলাদেশি নারীর কবর এটি। মৃত্যু হয়েছে গত ৮ এপ্রিল। কবরের গায়ে থাকা নামফলক বলছে, নিউইয়র্কের ব্রুকলিনের বাসিন্দা তিনি। গত ২৪ এপ্রিল দুপুরে এই কবরস্থানে গিয়ে দেখা গেছে, এখানে যারা এসেছেন তাদের অনেকেরই আগ্রহ আর কৌতূহল ছিল কবরটি নিয়ে। কেউ বলেছেন, প্রয়াত প্রিয় মানুষটির শেষ ইচ্ছে পূরণে হয়তো স্বজনদের এ আয়োজন। কারোর ধারণা, কবরের পাশে স্বজনদের প্রার্থনার জন্য এমন ব্যবস্থা। একজনকে দাফন করার মতো জায়গার দাম অঞ্চলভেদে ভিন্ন ভিন্ন। ৫০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ ডলার। আগে জায়গা কিনে রাখলে দাম কম পড়ে। কবরের জায়গা ছাড়াও মৃতদেহ সংরক্ষণ, ধোয়া ও দাফনের কাজ শেষ করতে আরও ২ থেকে ৩ হাজার ডলার ব্যয় হচ্ছে এ সময়ে।

ad
ad

আন্তর্জাতিক সর্বশেষ

ad
ad

আন্তর্জাতিক সর্বাধিক পঠিত

আগের সংবাদ
পরের সংবাদ