বোলার মাশরাফির জায়গা হবে কি?

বয়সের ঘর ৩৬ ছাড়িয়েছে। উদ্যম, মনোবল অবশ্য তরুণের মতোই আছে। অধিনায়কের দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। কিন্তু ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের মঞ্চ থেকে এখনই হারিয়ে যেতে চান না মাশরাফি বিন মুর্তজা। বোলার হিসেবে ২২ গজের চ্যালেঞ্জটা নিতে প্রস্তুত সায়াহ্নে দাঁড়ানো মাশরাফি।

২০১৭ সালে টি-২০ থেকে অবসর নেওয়ার পর শুধু ওয়ানডে ফরম্যাটই খেলছেন ডানহাতি এই পেসার। নেতৃত্বের অধ্যায়ের অবসানের পর এখন সবার মুখে মুখে প্রশ্ন শুধু খেলোয়াড় হিসেবে কতদূর যেতে পারবেন মাশরাফি? কতটা প্রলম্বিত হবে তার ক্যারিয়ার? ওয়ানডে দলে পেসার হিসেবে তার জায়গা হবে কি?

জাতীয় দলের নির্বাচকরা অবশ্য এখনই এই প্রসঙ্গে নির্দিষ্ট কোনো মন্তব্য করতে রাজি নন। জানতে চাইলে গতকাল প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেছেন, ‘এটা এখনই কিছু বলা যাবে না। সামনে কোচ, অধিনায়কের সঙ্গে আলোচনায় বসতে হবে।’

আরেক নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন মাশরাফির অভিজ্ঞতাকে গুরুত্ব দিচ্ছেন। তবে দলে জায়গার বিষয়ে মন্তব্য করেননি। গতকাল বলেছেন, ‘এই সিরিজে তো ভালোই বোলিং করেছে। আগে তো অধিনায়ক হিসেবে ছিল, এখন শুধু খেলোয়াড় হিসেবে খেলবে। এটা ওর জন্য ভালোও হতে পারে হয়তো। পারফরম করতে ভালো হবে হয়তো। বোলার হিসেবে তো আমাদের এখন সবচেয়ে অভিজ্ঞ বোলার।’

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হোম সিরিজে উইকেট শিকারে এই সিরিজে সাইফউদ্দিন (৭টি), তাইজুলের (৬টি) পরই আছেন মাশরাফি। তিন ম্যাচে ৪ উইকেট নিয়েছেন তিনি। প্রথম ম্যাচে দুটি এবং পরের দুই ম্যাচে একটি করে উইকেট পান তিনি। প্রথম ম্যাচে ৬.১ ওভার, দ্বিতীয় ম্যাচে ১০ ওভার ও তৃতীয় ম্যাচে ৬ ওভার বোলিং করেছেন। তার মধ্যে দ্বিতীয় ম্যাচে টানা ৮ ওভার বোলিং করে ফিটনেসের পরীক্ষাও দিয়েছেন। এখন পর্যন্ত ২২০ ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ ২৭০ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের সেরা মাশরাফি।

আগামী ১৫ মার্চ শুরু হবে ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ। যেখানে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের হয়ে খেলবেন মাশরাফি। এপ্রিলে পাকিস্তান সফরে একটি ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ। সেই দলে সুযোগ পেতে হলে তাকে পারফরম করতে হবে প্রিমিয়ার লিগে।

এখন পারফরম করে দলে আসার চ্যালেঞ্জটা পাড়ি দিতে হবে মাশরাফিকে। শুক্রবার ম্যাচের পর এই প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, ‘পারফরম্যান্স করেই আসতে হবে (দলে)। আবার নির্বাচকদের চিন্তা-ভাবনা (আছে)। আমি এখানে বসে দল নির্বাচন নিয়ে কিছু বলতে পারব না।’

শুধু খেলোয়াড় হিসেবে থাকাটা নিজের জন্য শাপেবর বলেই মনে করেন মাশরাফি। নড়াইল এক্সপ্রেস বলেছেন, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব করাই একটা চাপ। আমি যখন একজন খেলোয়াড় হিসেবে থাকব, আমাকে নিয়ে অনেক ভাবনার ক্ষেত্র তৈরি হবে। আমি মনে করি, আমার জন্য ভালো হয়েছে। সুযোগ পাওয়া না-পাওয়া পরের ব্যাপার। তবে আমার খেলার জন্য অনেক সুবিধাই হবে আমি মনে করি।’

সদ্য সমাপ্ত সিরিজেই মাশরাফিসহ বাংলাদেশ দলে ছিলেন পাঁচ পেসার। সাইফউদ্দিন, মুস্তাফিজ কার্যত ওয়ানডে দলের পেস আক্রমণে অটোচয়েস। দলে আছেন আল-আমিন হোসেন, শফিউল ইসলামের মতো বোলার। দলের বাইরে থাকা তাসকিন আহমেদ, রুবেল হোসেনরাও মাশরাফির প্রতিদ্বন্দ্বী বটে। অভিজ্ঞতা, স্কিল দিয়ে অনুজদের পেছনে ঠেলে ওয়ানডে দলে টিকে থাকতে পারবেন কিনা নড়াইল এক্সপ্রেস, সেটাই এখন দেখার বিষয়। এতদিন অন্যদেরকে আস্থার ছায়া দিলেও এবার নতুন অধিনায়কের আস্থা পেতে হবে পেসার মাশরাফিকে।

ad
ad

খেলা সর্বশেষ

ad
ad

খেলা সর্বাধিক পঠিত

আগের সংবাদ
পরের সংবাদ