Home / slider / বাংলাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর আক্রমণ শুরু করার জন্য আক্রমণকারীদের পছন্দের তালিকায় ভোলা অন্যতম

বাংলাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর আক্রমণ শুরু করার জন্য আক্রমণকারীদের পছন্দের তালিকায় ভোলা অন্যতম

Loading...

মাসুদা ভাট্টি : বাংলাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর আক্রমন শুরু করার জন্য আক্রমণকারীদের পছন্দের তালিকায় ভোলা অন্যতম। ২০০১ সালে নির্বাচনের পর ভোলায় যে ভয়ংকর ঘটনা ঘটানো হয়েছিলো, বোঝাই যাচ্ছে ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে হিন্দু যুবকের ঘাড়ে মহানবীকে কটুক্তি করার দায় চাপানোর লক্ষ্যও ছিলো ভোলায় হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর নতুন করে আক্রমণ শুরু করা। পুলিশ বাহিনী সেটা সামলেছে, যদিও তাদের দাবি অনুযায়ী দুটি লাশের মাথা থেঁতলে দেওয়া ছিলো তার মানে আবারও লাশের রাজনীতি। কোথায় ও কোত্থেকে পরবর্তী আক্রমণ শুরু হবে বলা মুশকিল কিন্তু একথা নিশ্চিত করেই বলা যায় যে : ১. ক্ষমতা দখল করতে মরিয়ারা আবারও বাংলাদেশে রক্তের নদী সৃষ্টিতে তৎপর,

২. জনগণের সমর্থন নয়, তারা লাশ চায় একের পর এক লাশ দরকার ওদের, ৩. সরকার যখন কঠোর হতে শুরু করেছে তখন এতেদিন ধরে সুবিধাপ্রাপ্তরা আচানক খেপে উঠেছে, তারাও নিজেদের পশ্চাৎদেশ বাঁচাতে দেশে অস্থিরতা চায়, ৪. দেশের ভেতর ভারত-বিরোধী রাজনীতিকে আরও উস্কে দিতে ধর্মকে ব্যবহার করে সাম্প্রদায়িক রক্তকা- ঘটানোর পুরনো খেলা আবারও জোরেশোরে শুরু হয়েছে, ৫. জাহাজ ডোবার মতো কোনো সম্ভাবনা দ্যাখা দিলেই ইঁদুরেরা সবার আগে লাফিয়ে পড়তে শুরু করে, এরই মধ্যে বেশ কিছু ইঁদুরের দ্যাখা মিলেছে আরও মিলবে, যদিও জাহাজ ডোবার মতো কোনো সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে বলে মনে হচ্ছে না। ৬. গুজব ছড়িয়ে ভয়ংকর পরিস্থিতি তৈরির সবচে নির্ভরযোগ্য প্ল্যাটফরম সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম তথা ফেসবুক প্রথমে একাধিক বিখ্যাতজনের ফেসবুক সরকার বন্ধ করে দিয়েছে বলে গুজব উঠেছে। তারপর এই ভোলাকা-, তার মানে ২০১২/১৩/১৪/১৫ থেকে শিক্ষা নেয়ার সময় এসেছে। আপনি নিজে সতর্ক থাকুন আপনার নিকটজনকে সতর্ক রাখুন কারও ক্ষমতালিপ্সার, কোনো হত্যাকারীর, কোনো লাশের রাজনীতির শিকার আপনি নিজে হবেন না, কাউকে হতেও দেবেন না। ফেসবুক থেকে

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*