Home / slider / বাবার কাছে খোলা চিঠি….!

বাবার কাছে খোলা চিঠি….!

Loading...

বাবার কাছে খোলা চিঠি….

– রিদওয়ান ইসলাম সজীব 

বাবা….
ও…. বাবা….
তুমি কোথায়?
আমায় শুনতে পাচ্ছো বাবা,,,,,
বাবা,তোমাকে ছাড়া দুইটা বছর পার হয় গেছে বুজতে পারি নাই।গত দুইটা বছর একবার ও বাবার আদর পাই নাই । বাবা বলে ডাকতে পারিনি।তোমাকে ছাড়া আমাদের দিব্যি চলে যাচ্ছে।কোত্থাও আটকাচ্ছে না।অথচ কি ভুলটাই না ভাবতাম।ছোটবেলায় ভাবতাম তুমি বা মা তোমাদের কেউ মারা গেলে আমিও মরে যাবো।অথচ কি আশ্চর্য দেখ,তুমি চলে গেলা,কই আমার তো কিচ্ছুই হয়নি।বেশ আছি।শুধু মাঝে মাঝে বুকটা কেমন যেন শূন্য হয়ে যায়।ভেতরটাতে কেমন যেন হাহাকার করে উঠে।ভেতর থেকে গুমরে উঠে বোবা কান্না। বাবা,তোমার ভালোবাসা বিহীন আজ আমি ক্লান্ত।আমি পথ চলতে পায়ে শক্তি পাই না।জানো বাবা,তুমি পৃথিবী থেকে বিদায় নেয়ার সাথে সাথে ভালোবাসা শব্দটিও বাক্সবন্দি হয়ে গেছে। উহাকে আর কারো হৃদয় বাগানে প্রস্ফুটিত হয়ে সৌরভ ছড়াতে দেখিনা।
তুমি ছিলে আমার বন্ধু। আমার ক্রান্তিলগ্নে তোমার মধুময় স্মৃতিগুলোই আজ আমার পুঁজি।
আমি তোমার কাছে শিখেছিলাম অসীম সাহসিকতা নিয়ে কীভাবে জীবনে জয়ী হতে হয়। যদিও সমাজ নিয়মে একে বলে পরাজয়! কিন্তু বিপদে আদর্শচ্যুত না হওয়াটাও বড় এবং মহৎ বিজয়। এই চরম সত্যটা আজকালকার মানুষরা বুঝেনা, উহাই আমার আক্ষেপ।
তোমার মায়াবী ডাক আর অমায়িক ব্যবহার কার ও কাছে এখন আর পাই না।আজ বারে বারে বাবা ডাকতে ইচ্ছে করে কিন্তু পারি না।বাবা নামক মানুষটা থেকে এখন আর সাড়া পাই না। তোমার উপদেশগুলো এখনও আমার কানে বাজে।

বাবা জানো, তুমি আমার প্রিয় শিক্ষক। এখনো আছো।তোমার ন্যায় সততা থেকে পাওয়া শিক্ষা এখন আমার অনেক কাজে দে।বাবা আমি তোমার মতো একজন ভালো শিক্ষক হতে চাই। তোমার জীবিনী থেকে কিছু শিক্ষা, উপদেশ আমার জীবনের সাথে মিশিয়ে রাখতে চাই।হৃদয়ে প্রতিটি স্থানে তোমার বসবাস।তোমার কথা মনে পড়লে চোখের কোণায় পানি জমে যায়।

বাবা,আমার দাবী কখনো অপূরণ রাখনি। শত দৈনতার মাঝেও যখন যা চেয়িছি দিয়েছ। না পারলে প্রশমিত চিত্তে বুঝিয়েছ। তুমি চলে যাবার পর আমার আর দাবীর জায়গা রইল না।

বাবা জানো,
তোমার কাপড়চোপড় এখনো তুমি যেভাবে রেখে গেছো ঐভাবে পড়ে আছে। আর ঐ ঔষধের বক্স,…
ওটাও না, তুমি যেভাবে রেখে গেছ সেভাবেই আছে।তোমার কোরআন শরীফ, তসবী, জায়নামাজ, চশমা, সব গোছানো আছে। তুমি তো অগোছালো একদম সহ্য করতে পারতে না।

তুৃমি চলে যাবার পর ভাইয়ারা কেমন অসহায়ের মত ঘুরে। কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারেনা।
কেন বাবা ওদের হাতটা ছেড়ে দিয়ে একটু শক্তসমর্থ বানাওনি? সব দায়িত্ব কেন সারাজীবন নিজের মাথায় রেখেছিলে??
তাহলে তো ওরা আজ এত কষ্ট পেতনা।

বাবা জানো,
আমি এখন অনেক রাত পর্যন্ত মোবাইল নিয়ে থাকি।কেউ বকে না,ভাইয়াদের কাছে আমার মোবাইল নিয়ে কেউ বিচার দেয়না। বাবা আমি স্বাধীনতা চেয়েছিলাম, কিন্তু এতটা নয়।
বাবা তোমার কথা অনেক মনে পড়ে। তোমার উপদেশ শাসনগুলা অনেক মিস করি।রেজাল্ট খারাপ হলে সবাই বকা দিতো, একমাত্র তুমি ছাড়া।কাদেঁ হাত রেখে তোমার উপদেশগুলা এখন আর কেউ বলে না।এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়ার খবর শুনে আমাকে জড়িয়ে ধরে আনন্দে অশ্রু ফেলছো। সব কিছু আমার চোখে ভাসে।

বাবা জানো,
বড় ভাইয়া বিয়ে করেছে। আজ তুমি থাকলে অনেক খুশি থাকতে। তুমি যেমনটা চাই ছিলা ঠিক তেমন। আম্মু ভাইয়া সবার পছন্দ হয়েছে। ঐদিন সবাই তোমাকে অনেক মিস করছে বাবা।

বাবা জানো,
আম্মু প্রতিদিন কাঁদে। অনেকদিন আমি দেখেছি।আমি নিষেধ করছি আম্মুকে তবুও কাঁদে। আম্মুকে সুস্থ রাখার চেষ্টা করি কিন্তু জানো বাবা তোমার কথা চিন্তা করে করে অসুস্থ হয় যায়।

বাবা,
তোমার বিদায় দিন তুমি আমার হাত ধরে রাস্তায় হাঁটছিলা।ঐ মুহুত্ব আমি কখনো ভুলতে পারবো না।ঐ দিন নিজ হাতে তোমাকে গোসল করাই দিছি।তোমার কাপড় ধুয়ে দিছি।তোমার খাবার ভাড়াই দিছি।তুমি যখন ঘুমাতে গেলা আমাকে ডাকছো পা টিপার জন্য।পা টিপলে তোমার ঘুম আসে। কিন্তু কে জানতো তুমি একেবারি ঘুমাই যাবা আর জাগবা না। তুমি বিদায় নেওয়ার সময় আমাকে বার বার তোমার কাছে ডাকছিলা। কিন্তু আমি তোমার পাশে একটু বসে তোমাকে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য গাড়ি আনতে গেছি। কিন্তু এসে দেখি তুমি বিদায় নিয়ে চলে গেছো দূর আকাশে।তখন অনেকবার বাবা বলে ডাকছি তোমার কোন সাড়া পাই নাই।আমি তোমাকে অনেকবার বলছি উঠো না আব্বু, তোমার চোখটা খুলো আব্বু। তোমার কোন সাড়া পাই নাই।সবাই বলে তুমি নাকি চলে গেছো অনেক দূরে। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি না। আমার বাবা আমার হৃদয়ের অন্তস্থলে আছে। প্রতিরাতে তো তোমার সাথে কথা বলি।

বাবা…ও… বাবা…একটু আদর দিয়ে যাওনা। আজ যে বড্ড আদর খেতে ইচ্ছে করছে।কখনও ভাবিনি তোমার আদরটাকে এত্ত মিস করবো।বুঝতে পারলে তোমার আদরগুলোকে বাক্স ভরে রেখে দিতাম, আর প্রতিদিন একটু একটু করে বের করতাম।

আচ্ছা বাবা,
অনেক হলো।
একটু শান্তিতে ঘুমাওতো।চিন্তার জন্য তো কত রাত ঘুমোতে পারোনি।এখন তো আর ওসব ব্যাথা,যন্ত্রনার বালাই নেই।আর বকে বকে তোমার মাথা খাবোনা।
ঘুমাও।
পরম প্রিয় আল্লাহ কাছে পরম শান্তিতে ঘুমাও। কেউ জাগাবেনা।

– তোমার ছোট ছেলে
(রিদওয়ান ইসলাম সজীব)

(Visited 1 times, 1 visits today)
Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

12 + 20 =