Templates by BIGtheme NET
Home / slider / নোয়াখালীর সাংবাদিক রিপন মজুমদারের কণ্যার চিকিৎসায় এগিয়ে আসুন

নোয়াখালীর সাংবাদিক রিপন মজুমদারের কণ্যার চিকিৎসায় এগিয়ে আসুন

Loading...

আজকের সময় রিপোর্ট : নোয়াখালী জেলার সাংবাদিক জাতীয় দৈনিক আলোকিত সকাল পত্রিকার স্টাফ
রিপোর্টার ও বাংলাদেশ নিউজ এজেন্সী জেলা প্রতিনিধি এবং বাংলাদেশ অনলাইন
জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন নোয়াখালী জেলা শাখার সভাপতি, বেগমগঞ্জ উপজেলা
প্রেসক্লাবের যুগ্ন সাধারণ-সম্পাদক রিপন মজুমদার দীর্ঘদিন থেকে হার্ট এর
অসুস্থতায় ভুগছেন ডাক্তারের পরামর্শে চিকিৎসা নিলেও ভাল কোন অবস্থানে নেই।
অন্যদিকে এই হতভাগা সাংবাদিকের একমাত্র কণ্যা জন্মলগ্ন থেকেই প্রতিবন্ধী। তাঁর
চোখের সমস্যা দীর্ঘদিন থেকে, মেয়ে অধরা মজুমদারের চোখের জন্য বিভিন্ন
ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে চিকিৎসা করিয়ে আসছেন কিন্তু অধরার চোখের ভাল কোন পদক্ষেপ নেই বরং ক্রমেই অন্ধত্বের দিকেএগিয়ে চলছে ৫ম শ্রেনিতে পড়ুয়া প্রতিবন্ধী
অধরা।
চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী অধরার চোখ ভাল করতে হলে দেশের বাহিরে
গিয়ে উন্নত চিকিৎসা করে অপারেশন করতে হবে। রিপন মজুমদার যদিও পেশাগতভাবে
একজন সাংবাদিক কিন্তু পরিবারে নেই কোন অর্থ বা সম্পত্তি, কোন রকম নিজের
পরিবার নিয়ে ভাড়া বাসায় বসবাস করেন আসছে। একমাত্র প্রতিবন্ধী মেয়ে অধরার
চোখের অপারেশন করার জন্য এবং নিজের হার্ট এর চিকিৎসা করার জন্য আর্থিক
কোন সংগতি নেই এই হতভাগা সাংবাদিকের। নোয়াখালী জেলায় দীর্ঘদিন থেকে
রিপন মজুমদার সততার মাধ্যমে জাতীয় বিভিন্ন পত্রিকায় এবং অনলাইনে সংবাদকর্মী
হিসেবে কাজ করে আসছেন। বেগমগঞ্জ উপজেলার সাংবাদিকগণ রিপন মজুমদারকে
আর্থিক এবং মানসিক ভাবে সহযোগীতা করেছেন। সাংবাদিক রিপন মজুমদারের
প্রতিবন্ধী মেয়ে অধরার চোখের অপারেশনের জন্য প্রায় ৪ লক্ষ্য টাকা প্রয়োজন কিন্তু
রিপন মজুমদারের সাধ্য অনুযায়ী এত বিশাল অংঙ্কের টাকার যোগান দেওয়া সম্ভব
হচ্ছে না,তাই তাঁর প্রতিবন্ধী মেয়ের চোখ অপারেশন করে উন্নত চিকিৎসার জন্য
তিনি বাংলাদেশের সকল বিত্তবান, হৃদয়বান, ধানবিকদের প্রতি সহযোগীতার হাত
বাড়িয়ে দিচ্ছেন। সাংবাদিক রিপন মনে করেন সমাজের ধনী এবং বিত্তবানরা যদি
সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেন তাহলে অধরার চোখের চিকিৎসা করানো সম্ভব হবে।
তাঁর মেয়ে ফিরে পাবেন সুন্দর একটা জীবন এবং ফিরে পাবে চোখের দৃষ্টি।
চোখ মানুষের মূল্যবান সম্পদ আর সেই মূল্যবান সম্পদ হারিয়ে যাওয়ার পথে ৫ম
শ্রেনিতে পড়ুয়া প্রতিবন্ধী অধরা। অধরা মজুমদার কান্নায় জড়িত কন্ঠে বলেন, এই
সমাজে অনেক হৃদয়বান বা ধানবিক ব্যক্তি আছেন, আমাকে তাদের মেয়ে মনে করে
আমার চিকিৎসার জন্য সহযোগীতা কামনা করছি। আমি আমার চোখের দৃষ্টি
পুনরায় ফিরিয়ে পেতে চাই, আমি যাতে পড়ালেখা করতে পারি সবার মতো, আমিও
স্কুলে গিয়ে সকলের সাথে পড়ালেখা করতে চাই কিন্তু আমি যদি অন্ধ হয়ে যাই তাহলে
আমার সেই স্বপ্ন পূরন হবে না।
অন্যদিকে এই প্রতিবন্ধী অধরার বাবা মেয়ের চিকিৎসার জন্য চারদিকে অর্থ
সংগ্রহের জন্য ঘুরাঘুরি করছেন কিন্তু প্রয়োজনীয় অর্থ সংগ্রহ হয় নাই এখনও।
তাই তাদের বাবা-মেয়ের সু-চিকিৎসার জন্য সকলের সু-দৃষ্টি এবং সহযোগীতার
হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য সকলের কাছে বিনিত অনুরোধ জানিয়েছেন নোয়াখালীর
কর্মরত সংবাদকর্মীরা।
সাংবাদিক রিপন মজুমদারের প্রতিবন্ধী মেয়ের চোখের অপারেশনের চিকিৎসার জন্য
সহযোগীতার জন্য ফোন নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারেন।

সাংবাদিক রিপন মজুমদার ও পরিবারের নাম্বার:-
০১৭১১-০৫১২০১, ০১৮৪৩-৮০১৭৪০
০১৮১৯-০৪৮৮৩৮ (বিকাশ)
সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক লিঃ, চৌমুহনী শাখা, নোয়াখালী।
হিসাব নং- ০২৯১৩৪০০০৭০৫৩

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

6 + twelve =