Templates by BIGtheme NET
Home / slider / ব্রেকআপের কষ্ট ভুলতে চান?

ব্রেকআপের কষ্ট ভুলতে চান?

Loading...

সম্পর্ক ভেঙে যাওয়া তথা ব্রেকআপ বেশির ভাগ মানুষের জন্যই কষ্টের। এই কষ্ট কমাতে কেউ হুট করে আরেকটি সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন, কেউ আবার ঘরে বসে কান্নাকাটি করেন। এ সময়ে অনেকেই প্রাক্তন প্রেমিক বা প্রেমিকার চিঠি ও ছবি পোড়ান, কেউ আবার মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন। ব্রেকআপের কষ্ট ভুলতে এমন উপায়গুলোর কার্যকারিতা নিয়ে এক গবেষণায় দেখা যায়, তিনটি কাজ আসলেই উপকারে আসে এ সময়ে।

যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব মিসৌরির গবেষকরা এমন ২৪ জন মানুষকে বেছে নেন, যাদের সম্প্রতি ব্রেকআপ হয়েছে। তাদের বয়স ছিল ২০ থেকে ৩৭ এবং গড়ে ৩০ মাস সম্পর্কে ছিলেন তারা। তাদেরকে চারটি দলে ভাগ করা হয়।

প্রথম দলকে বলা হয়, প্রাক্তন প্রেমিক বা প্রেমিকার ব্যাপারে খারাপ চিন্তা করতে। দ্বিতীয় দলকে বলা হয়, যা হয়েছে তা মেনে নিতে। তৃতীয় দলকে বলা হয়, এমন সব চিন্তা করতে যাতে প্রাক্তনকে ভুলে থাকা যায়। চতুর্থ দলকে কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি।

এরপর প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীর মাথার পেছনের দিকে ইলেকট্রোড বসানো হয়। প্রত্যেককে তার প্রাক্তন প্রেমিক বা প্রেমিকার ছবি দেখানো হয় এবং এ অবস্থায় তার মস্তিষ্কের কার্যকলাপ দেখা হয়।

তিনটি দলের মানুষের তিন ধরনের প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। প্রথম দলের মানুষ প্রাক্তনের প্রতি কম অনুরক্ত বোধ করেন, কিন্তু তাদের মেজাজ খারাপ হয়ে যায়। দ্বিতীয় দলের মানুষ তাদের প্রাক্তনের প্রতি আগের মতোই ভালোবাসা অনুভব করেন। আর তৃতীয় দলের মানুষ সব দিক দিয়ে বেশি সুখী বোধ করেন।

গবেষণায় এটাই বলা হয় যে, এই তিনটি উপায়ে সবগুলোই অল্প সময়ের জন্য ব্রেকআপের কষ্ট ভুলে থাকার জন্য উপকারী। কিন্তু দীর্ঘ মেয়াদে মানসিক শান্তির জন্য আসলে এগুলো তেমন কার্যকর নয়। ভালোবাসার সম্পর্ক নিমিষেই ভুলে যাওয়া অসম্ভব।

সম্পর্ক ভেঙে যাবার ধকল সামলাতে চিন্তায় পরিবর্তন আনা দরকার, আর তাতে সময় লাগে। মাদকাসক্তি বা ধুমপানে আসক্তি থেকে বের হয়ে আসার মতো পদ্ধতি এটি। ইউনিভার্সিটি অব মিসৌরির এই গবেষণার একজন লেখক সারাহ ল্যাংস্ল্যাং। তিনি জানান, নিয়মিত নিজের অনুভূতিকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

সারাহ জানান, নিজের প্রাক্তন প্রেমিক বা প্রেমিকার যত খারাপ বৈশিষ্ট্য আছে, প্রতিদিন তা একটি ডায়েরিতে লিখলে কাজ হতে পারে। যদিও এতে শুরুর দিকে আপনার মেজাজ খারাপ হতে পারে। এতে প্রাক্তনের প্রতি আপনার ভালোবাসা কমে এবং দীর্ঘমেয়াদে আপনার মন ভালো করে দেয়। একই সঙ্গে ব্রেকআপের কষ্ট কমায়। একইভাবে বাকি দুইটি কাজও নিয়মিত করলে উপকার হতে পারে।

সূত্র: টাইম

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

seven + 17 =