ফুল কি কথা বলে!

শাহনাজ শারমিন: ফুল শুধু সুন্দর ও সুভ্রতার প্রতীক নয়। ফুল বলে, ধন্য আমি ধন্য আমি মাটির
পরে। দেবতা ওগো, তোমার সেবা আমার ঘরে। জন্ম নিয়েছি ধূলিতে, দয়া করে দাও ভুলিতে, নাই
ধূলি মোর অন্তরে। নয়ন তোমার নত করো, দলগুলি কাঁপে থরোথরো। চরণপরশ দিয়ো দিয়ো, ধূলির
ধনকে করো স্বর্গীয়, ধরার প্রণাম আমি তোমার তরে … ফুল কি কথা বলে! ভেবে দেখুন তো আপনি
ফুলের সঙ্গে সুদ্ধতা আনতে পারেন কি না!

মনকে প্রফুল্য করতে ফুলের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। এটি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আমাদের
কাজে আসে। প্রতিটি গাছপালারই সাধারণত একটি ল্যাটিন নাম থাকে, যদিও সেসব গাছ বা ফুলকে
ভিন্ন ভিন্ন দেশে আলাদা আলাদা নামে ডাকা হয়৷ কিছু ফুলের ক্ষেত্রে জার্মানদের দেয়া মজার সব
নামগুলো জেনে নিন।

স্টিফম্যুটারশেন’ বা সৎ মা
ছবিতে সৎ মা ফুলের পাপড়িগুলো দেখুন৷ নীচের ছোট ফুল বা পাপড়িগুলোকে (সৎ মেয়ে) বড়
ফুলগুলো (সৎ মা) কেমন আড়াল করে ঢেকে রেখেছে৷ এ কারণেই হয়ত ‘স্টিফম্যুটারশেন’ বা সৎ মা
বা সৎ মামনি নাম রাখা হয়েছে৷ এ সব নানা রঙের সুন্দর ফুলগুলোর কিন্তু খুব বেশি যত্নের প্রয়োজন
হয় না৷

‘ফেরগিসমাইননিষ্ট’ বা আমায় ভুলে যেও না
এই ফুলের গ্রিক নাম দিয়েছিলেন উদ্ভিদবিজ্ঞানীরা৷ নামটি বেশ মজার ‘মিয়োসোটিস’, যার বাংলা
অর্থ ইঁদুরের কান৷ তবে জার্মানিতে এই ফুলটির নাম ‘আমায় ভুলে যেওনা’৷এই নামকরণের পর
থেকেই ফুল গাছটিকে ভালোবাসার সম্পর্কে বিশ্বাসের প্রতীক হিসেবে ধরা হয়ে আসছে৷

‘ফ্লাইসিগেস লিশেন’ বা পরিশ্রমী লিশেন
এই ফুলটির উদ্ভিদ বিজ্ঞানীদের দেয়া ল্যাটিন নাম ‘ইমপেশেন্স’ বা অধৈর্য৷ ফুলটি ফোটে মে থেকে
অক্টোবর মাস পর্যন্ত৷ শুধু তাই নয়, কোনো রকম বিরতি ছাড়াই এক নাগাড়ে এ সময় নতুন নতুন ফুল
ফুটতে থাকে৷ আর সে কারণেই হয়ত জার্মানরা এই ফুলকে ‘ফ্লাইসিগেস লিশেন’ বা পরিশ্রমী লিশেন
বলে ডাকে৷

‘ম্যানারট্রয়’ বা বিশ্বস্ত পুরুষ
এই ছোট ছোট মিষ্টি নীল রঙের ফুল ফোটে শুধুমাত্র গ্রীষ্মকালে, জুন থেকে জুলাই মাস পর্যন্ত৷ অর্থাৎ
খুবই অল্প সময়ের জন্য ফুলপ্রেমীদের আনন্দ দেয় এই ফুল৷ আর সেই রসবোধ থেকেই হয়ত
জার্মানিতে ফুলটির ল্যাটিন নাম ‘লোবেলিয়া’-কে পাল্টে রাখা হয়েছে ‘ম্যানারট্রয়’ বা বিশ্বস্ত পুরুষ৷

টয়ফেল্সক্রালে’ বা শয়তানের নখ
গাছটির দিকে তাকিয়ে দেখুন, যেন মনে হবে ওটাতে হাত দিলেই ধারালো নখগুলো আপনাকে আচড়
দেবে৷ দেখে এরকমটা মনে হলেও, বাতের ব্যথা বা হজমে সাহায্য করার মতো বিস্ময়কর অনেক গুণ
রয়েছে এই গাছের৷

‘রোটার ফিঙারহুট’ বা লাল ফিঙারহ্যাট
বাঁদিকের ফুলগুলো দেখুন, কী সুন্দর! ঠিক যেন লম্বা চিকন টুপির মতো৷ মনে হয় আঙুলে পরা যাবে,
তাই না? এই ভাবনা থেকেই হয়ত ‘রোটার ফিঙারহুট’ বা আঙুলের টুপি নাম পেয়েছে ফুল গাছটা৷
তবে এই সুন্দর চেহারার আকর্ষণীয় ফুলগুলো অত্যন্ত বিষাক্ত বলে একে ছোঁয়া বা মুখে দেওয়া কিন্তু
একেবারেই নিষিদ্ধ৷

প্রতিদিন ভালবাসা মূল্যহীন কেনাবেচা করি চারটি চোখে আবার বিচ্ছেদ বিচ্ছেদ খেলি এ চোখে ও
চোখে। এই চোখে তো কত কিছুই দেখি সুন্দর অসুন্দর সবই। যদি দিন শুরুতেই দেখি ফুল। তাহলে
কেমন হয়? আসলেই ভারো হয়। মন কোমলতা পছন্দ করে।

ad
ad

আরও সর্বশেষ

ad
ad

আরও সর্বাধিক পঠিত

আগের সংবাদ
পরের সংবাদ