বৃষ্টিতে শিশুদের নিয়ে দিশেহারা রোহিঙ্গা মায়েরা

বিশেষ প্রতিনিধি: রেহেনা খাতুন। বার্মার মেরুলা থেকে ৮ দিন আগে ৫ মাস ও ৩ বছরের শিশুকে নিয়ে নাফ দিয়ে ছোট নৌকা করে পালিয়ে এসেছেন। এখন আশ্রয় নিয়েছেন বালুখালি অস্থায়ী ক্যাম্পে। তার চোখের সামনে ভাইপো শিপাতকে সেনারা কুপিয়ে খন্ড খন্ড করে হত্যা করেছে। জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে ঘরটিও।

এখন তার আশ্রয় বাংলাদেশের খোলা আকাশের নিচে। আজ বুধবার সাড়ে ১১টায় কক্সবাজারে বৃষ্টি শুরু হলে অসহায় হয়ে দু’সন্তনকে নিয়ে একটু আশ্রয় খোঁজার চেষ্টা করতে দেখা গেছে তাকে। কোথাও ঠাই না পেয়ে বৃষ্টিতেই ভিজেন তিনি। এছাড়া বৃষ্টি থেকে বাঁচতে কেউ গাছের নিচে কেউ আবার কারো ঘরের কার্নিশের নিচে আশ্রয় নেন। এক ছাতার নিছে ৫/৬ জন লোককে আশ্রয় নিতে দেখা গেছে। তবে উখিয়া-টেকনাফের রাস্তার দুই ধারে হাজার হাজার রোহিঙ্গা বৃষ্টিতে ভিজে নিজেদের শেষ সম্বলটুকু আঁকড়ে ধরে আছেন এখনো।

রেহেনা বাংলারচোখবিডি ডট কমকে বলেন, এভাবেই বৃষ্টিতে ভিজে ৫টি রাত শিশু সন্তানদের নিয়ে কাটান তিনি। অশ্রু চোখে তিনি বলেন, আমি না হয় উপবাস, না খেয়ে থাকতে পারবো। কিন্তু অবুঝ সন্তানদের নিয়ে কি করব? বৃষ্টিতে ভেজা টাকার অভাবে সন্তানকে কী খাওয়াবেন তা জানেন না অসহায় মা রেহেনা।

শুধু রেহেনা নয়, এভাবেই উখিয়া থেকে টেকনাফ পর্যন্ত হাজার হাজার নারী শিশু বৃষ্টিতে চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে।

অন্যদিকে একটু ত্রাণের জন্য বৃষ্টিতে ভিজে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকা এই দৃশ্যপট এখন খুবই স্বাভাবিক।

ad
ad

এক্সক্লুসিভ সর্বশেষ

ad
ad

এক্সক্লুসিভ সর্বাধিক পঠিত

আগের সংবাদ
পরের সংবাদ