Templates by BIGtheme NET
Home / slider / ১৩ কোম্পানির তালিকাচ্যুতি নিয়ে ভুল তথ্য, লভ্যাংশ নিশ্চিতই ডিএসই’র লক্ষ্য

১৩ কোম্পানির তালিকাচ্যুতি নিয়ে ভুল তথ্য, লভ্যাংশ নিশ্চিতই ডিএসই’র লক্ষ্য

Loading...

১৩ কোম্পানির তালিকাচ্যুতি নিয়ে ভুল তথ্য, লভ্যাংশ নিশ্চিতই ডিএসই’র লক্ষ্য


নিজস্ব প্রতিবেদক, আজকের সময় :
কয়েকটি গণমাধ্যমে জেড ক্যাটাগরির ১৩টি শেয়ার নিয়ে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য এসেছে মনে করছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ-ডিএসই। পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি মনে করে এর মাধ্যমে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ছড়ানো হচ্ছে।
ডিএসই-এর পরিচালকরা জানান, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ থেকে কেউ বলেনি যে, পূণমূল্যায়নে থাকা পাঁচ বছর লভ্যাংশ না দেয়া জেড ক্যাটাগরির কোম্পানিগুলো তালিকাচ্যুতি করা হবে। অথচ কয়েকটি অনলাইন ও একাধিক শেয়ারবাজার কেন্দ্রিক গণমাধ্যমে ভুল শিরোনামে সংবাদ পরিবেশন হচ্ছে যে-ডিএসই আরও ১৩টি কোম্পানি তালিকাচ্যুতি করবে। এসব সংবাদ উদ্দেশ্য প্রণোদিত।
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কে এম মাজেদুর রহমান গনমাধ্যমকে জানিয়েছেন, জেড শ্রেনীর যে ১৩টি কোম্পানিকে চিঠি দেওয়া হয়েছে সেগুলো ৫ বছর ধরে লভ্যাংশ দিচ্ছে না। এ অবস্থায় বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে আমরা কোম্পানিগুলোর সার্বিক মূল্যায়ন পর্যাবেক্ষণ করছি। কোম্পানি কর্তৃপক্ষের কাছে তাদের কোম্পানির সর্বশেষ হালনাগাদ অবস্থার বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়েছে। আমরা আশাকরছি, সব না হলেও কয়েকটি কোম্পানি থেকে ইতিবাচক সাড়া পাবো।
তালিকাচ্যুতির বিষযে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, নেতিবাচক কিছু আমরা ভাবতে চাই না। এতো কঠিন সিদ্ধান্ত আমরা নিতে চাই না। জেড ক্যাটাগরির যেসব কোম্পানি বিনিয়োগকারীদের লভ্যাংশ দিচ্ছে না। দেওয়ার কোনো বার্তাও পাওয়া যাচ্ছে না। সেসবগুলোকে সতর্ক করতে চাই। জবাবদিহিতায় আনতে চাই। জবাবদিহিতায় আনা বা নোটিশ দেওয়া মানে তালিকাচ্যুতি না। ডিএসই-এর নোটিশের প্রেক্ষিতে বিনিয়োগকারীরা ইতিবাচক কিছুওতো জানতে পারেন।
ডিএসই-এর এক পরিচালক নাম না প্রকাশের শর্তে বলেন, দুটি কোম্পানি ডি লিস্টিংয়ের পর আমাদের এক পরিচালক আরও দু-একটি কোম্পানি তালিকাচ্যুতি করার পক্ষে ছিলেন, তিনি যেহেতু একটি ব্রোজারেজ হাউজের মালিক তার নিজস্ব স্বার্থ থাকতে পারে তবে অন্য পরিচালকরা তালিকাচ্যুতির মতো কঠিন সিদ্ধান্ত চায় না। ডি লিস্টিং বা তালিকাচ্যুতির মাধ্যমে সরকারও বিব্রত হবে। যেমন তালিকাচ্যুতি হলে পুঁজিবাজারের সামনে ওইসব কোম্পানির সাধারণ বা ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা অবস্থান নিলে এটা ভালো হবে না।
তিনি বলেন, দেখা গেলো আমরা আজ আরও দুটি কোম্পানি তালিকাচ্যুতি করলাম, ওই দুটি কোম্পানির বিনিয়োগকারীরা রাস্তায় নামলে পরিস্থিতি ভালো হবে না। সরকার যেখানে বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষায় আন্তরিক সেখানে বিনিয়োগকারীদের ক্ষতি হয় এমনটা আমরা করতে চাই না। তবে আমরা কড়া নজরদারিতে রাখবো জেড কোম্পানিগুলোকে। জবাবদিহিতা নিশ্চিত করবো।
পুঁজিবাজার বিশ্লেষকরা মনে করছেন, তালিকাচ্যুতি কোনো সমাধান নয়। মাথা ব্যাথার জন্য মাথা কেটে ফেলা সমাধান হতে পারে না। এর আগে কয়েকটি জেডকে ডিএসই নোটিশ দেয়ার পর তারা লভ্যাংশ দিয়েছে। উৎপাদনে না থাকা কোম্পানিও লভ্যাংশ দিয়েছে। তারা মনে করেন, পুঁজিবাজারের ১৩ কোম্পানির সার্বিক কার্যিক্রম পূণ মূল্যায়নের মাধ্যমে মেঘনা পিইটি, জুট স্পিন, দুলামিয়াসহ আরও একাধিক কোম্পানির লভ্যাংশ দেওয়ার খবর সম্প্রতি গণমাধ্যমে এসেছে, এর মাধ্যমে বাজারে নতুন গতি পাবে বলে তাদের মত।
রিপোর্ট: সাকলায়েন মুন্সি

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

14 − 10 =