Templates by BIGtheme NET

কোমলতাকে ভালবাসেন মহান আল্লাহ

Loading...

হযরত আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, মহান আল্লাহ কোমল, তিনি কোমলতাকে ভালবাসেন। আর তিনি কোমলতার প্রতি যত অনুগ্রহ করেন, কঠোরতা এবং অন্য কোন আচরণের প্রতি তত অনুগ্রহ করেন না।

মুসলিমের অপর এক বর্ণনায় আছে, একদা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আয়েশা (রা.) কে বলেন, কোমলতা নিজের জন্য বাধ্যতামূলক করে নাও এবং কঠোরতা ও নির্লজ্জতা হতে নিজেকে বাঁচাও। কারণ যাতে ন¤্রতা ও কোমলতা থাকে তার সৌন্দর্য বৃদ্ধি হয়। আর যাতে কোমলতা থাকে না, তা দোষণীয় হয়ে পড়ে (সহিহ মুসলিম)

হযরত ইমরান ইবনে হুসাইন (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, লজ্জা কল্যাণ ছাড়া আর কিছুই নিয়ে আসে না। অপর এক বর্ণনায় রয়েছে, লজ্জার সবকিছুই কল্যাণ (সহিহ বুখারী)

হযরত ইবনে মাসঊদ (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, পূর্ববর্তী নবীগণ হতে লোকেরা যা পেয়েছে এবং আজও যা বিদ্যমান তা হল যখন তোমার লজ্জা থাকবে না, তখন তুমি যা ইচ্ছা তাই করতে পারবে (সহিহ বুখারী)

হযরত নাওয়াস ইবনেু সামআন আনছারী (রা.) থেকে বর্ণিত, একদা আমি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে নেকী ও পাপ সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলাম। তিনি বললেন, নেকী হল উত্তম চরিত্র আর পাপ হল যে কাজ তোমার অন্তরে সংশয় সৃষ্টি করে এবং ঐ কাজটি তুমি জনসমাজে প্রকাশ হওয়া অপছন্দ কর (সহিহ মুসলিম)

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

one × four =