বিশ্ব ভালোবাসা দিবস কি?

Loading...

’বিশ্ব ভালোবাসা দিবস’ নিয়ে যতগুলো কল্প-গল্প প্রচলিত আছে তার সবগুলোই খৃস্টান ধর্ম প্রচারক ’সাধু ভ্যালেন্টাইন’কে ঘিরে। রোমান সম্রাট দ্বিতীয় ক্লডিয়াস-এর সময়ে ধর্মযাজক সেইন্ট ভ্যালেনটাইন তাদের দেব-দেবীর পূজা করতে অস্বীকার করায় তাকে কারারুদ্ধ করে পরে প্রাণদণ্ড কার্যকর করা হয়।
 খৃষ্টীয় ইতিহাস দাবি করছে, শিরশ্ছেদের শিকার হওয়ার আগে সাধু ভ্যালেন্টাইন জেলে বসে প্রেমাসক্ত যুবক-যুবতীদের প্রণয়-মন্ত্রে দীক্ষা দিত। আবার কোথাও বলা হচ্ছে- জেলারের অন্ধ কন্যার সাথে তার প্রণয় হয়ে গিয়েছিলো। সে মৃত্যুর পূর্বে প্রেয়সীকে লিখেছিল ’ফ্রম ইউর ভ্যালেন্টাইন।’ এ ইতিহাসটির বয়স সতের শত সাঁইত্রিশ বছর হলেও ‘বিশ্ব ভালবাসা দিবস’ নামে বেসামাল বেহায়াপনা চর্চার সূচনা ঘটে সাম্প্রতিক কালেই।
পাশ্চাত্যে এই ভালোবাসা দিবস পালনের ইতিহাসটিও ধর্মাশ্রিত। গোটা ইউরোপে যখন খৃষ্টান ধর্মের জয়জয়কার, তখন মধ্য ফেব্রুয়ারিতে গ্রামের সকল যুবকরা সমস্ত মেয়েদের নাম চিরকুটে লিখে একটি পাত্রে বা বাক্সে জমা করত। অতঃপর ঐ বাক্স হতে প্রত্যেক যুবক একটি করে চিরকুট তুলত, যার হাতে যে মেয়ের নাম উঠত, সে পূর্ণবৎসর ঐ মেয়ের সঙ্গে একত্রবাস (লিভ টুগেদার) করতো। বৎসর শেষে এ সম্পর্ক নবায়ন বা পরিবর্তন করা হতো। এ যৌনাচারের কদর্যরীতিটি কয়েকজন পাদ্রীর গোচরীভূত হলে তারা একে সমূলে উৎপাটন করা অসম্ভব ভেবে শুধু নাম পাল্টে দিয়ে একে খৃষ্টান ধর্মায়ণ করে দেয় এবং ঘোষণা করে এখন থেকে এ পত্রগুলো ‘সেন্ট ভ্যালেনটাইন’-এর নামে প্রেরণ করতে হবে। কারণ এটা খৃষ্টান নিদর্শন, যাতে এটা কালক্রমে খৃষ্টান ধর্মের সাথে সম্পৃক্ত হয়ে যায়।
মূলত: বিশ্ব ভালোবাসা দিবস” এই নামটাই একটা বড় ধরনের প্রতারণা। এর ইংরেজি নাম হল Saint Valentine Day. বা সাধু ভ্যালেন্টাইনের দিবস। এটা ’World Love Day. Saint Valentine Day কে অনুবাদ করে ’বিশ্ব ভালোবাসা দিবস’ নাম দিয়ে তাদের ধর্মীয় দিবসটাকে সেক্যুলার করে আমাদের মাঝে ঢুকানো হয়েছে! এটা নি:সন্দেহে প্রতারণা।
দ্বিতীয়ত বিষয় হচ্ছে, ভালোবাসা অনেক প্রকার আছে। সন্তানকে ভালোবাসা, বাবা-মা কে ভালবাসা, পরিবারকে ভালোবাসা ইত্যাদি। কিন্তু বিশ্ব ভালোবাসা দিবসকে এ  কোন ভালোবাসাকে প্রমোট করানো হচ্ছে? কেউ কি জ্ঞানের দেবী স্বরসতী পূজাকে ‘বিশ্ব শিক্ষা দিবস’ নাম দিলে উদযাপন করবেন? কিংবা মুসলমানদের কোরবানি ঈদকে ‘বিশ্ব খাদ্য উৎসব দিবস’ নাম দিলে পালন করবেন? অথচ খৃস্টান ধর্মযাজক সাধু ভ্যালেন্টাইন হত্যা দিবসকে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস নামে পালন করা হচ্ছে। ইসলাম ধর্মমতে এই হারাম দিবসকে মানুষ পালন করছে জেনে-না জেনে, অনেকে হুজুগে পড়ে। পবিত্র ভালোবাসাকে ডুবিয়ে দেয়া হচ্ছে অপবিত্রতা নোংরামি আর শঠতার ভেতর।

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*